যোগ্যতার বেশি থাকা সত্ত্বেও আজ বঞ্চিত আমরা

প্রকাশিত: ৭:২৫ অপরাহ্ণ, জানুয়ারি ২০, ২০২১

যোগ্যতার বেশি থাকা সত্ত্বেও আজ বঞ্চিত আমরা

তাসফীর ইসলাম (ইমরান):

* সার্ভে ইঞ্জিনিয়ারদের ক্ষেত্রে বাংলাদেশের অর্জন অনেক।
* সুযোগ ও অধিকারের বৈষম্যগুলোও বড়।
* সার্ভেয়ারদের আয় এখনো অন্য ইঞ্জিনিয়ারদের তুলনায় কম।
* এখন গ্রেড সমতার চ্যালেঞ্জ সবখানেই।

 

সার্ভেয়ার ও সমমানের পদে বিভিন্ন দপ্তরে কর্মরত সার্ভে ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারদেরকে অন্যান্য ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারদের ন্যায় ১০ম গ্রেড বেতন স্কেল বাস্তবায়ন শত বছর পেরিয়ে যাবার পরেও কার্যকর হয়নি।

 

যেখানে চার বছর মেয়াদি ডিপ্লোমাধারী অন্য ডিপার্টমেন্টের শিক্ষার্থীরা ১০ম গ্রেডে চাকরি করে। সেখানে কেন ৪ বছরের ডিপ্লোমা সার্টিফিকেট অর্জন করার পরেও সার্ভেয়িং টেকনোলজির শিক্ষার্থীদের ১৫ ও ১৬ তম গ্রেডে চাকরি করতে হয়? কেন তাদের নিয়োগের বেলার ডিপ্লোমা ইন ইঞ্জিনিয়ারিং চার বছর মেয়াদী সার্টিফিকেট ও সাথে আবার এইচএসসি পাশ চায়?
কেন? কেন?

 

একটি শিক্ষার্থী এসএসসি পাশ করার পরেই তো সেই সার্টিফিকেট দিয়ে ডিপ্লোমা ইন সার্ভে ইঞ্জিনিয়ারিং ভর্তি হয়। তাই ঐ শিক্ষার্থী কিভাবে এইচএসসি পাশ করবে?
তাদের নিয়োগের বেলার সবকিছুতেই কেন এতটা তফাৎ। যদি সার্ভেয়ারদের বাংলাদেশ প্রয়োজন নাই হয়ে থাকে তাহলে এই ডিপার্টমেন্ট অফ করে দেয়া হোক।
কেন শিক্ষার্থীদের আদর করে ঢুকিয়ে চাকরির সময় ঘার ধাক্কা দিয়ে বের করা হবে।

 

আবার দেখা যায়, চাকরি সময় যারা ৬ মাসে আমিন কোর্স করে তারাও সরকারি চাকরি করছে।

 

তাহলে ৪ বছর ডিপ্লোমা করে কি লাভ। লোকাল প্রতিষ্ঠান থেকে ৬ মাসের কোর্স কমপ্লিট করলেই তো আমি সার্ভেয়ার হয়ে যেতাম।

 

সার্ভেয়ারদের যেখানে মিলন মেলা সেটা হলো ভূমি মন্ত্রণালয়। যেখানে ১ যুগের বেশি হয়ে গেছে এখন পর্যন্ত নতুন কোনো নিয়োগ হয়নি।

 

বাংলাদেশে সার্ভেয়িং ডিপার্টমেন্টে একমাত্র সরকারি প্রতিষ্ঠান হচ্ছে বাংলাদেশ সার্ভে ইনস্টিটিউট রামমালা,কুমিল্লা।
যেখানে প্রতিবছর সারা বাংলাদেশ থেকে ২০০ শিক্ষার্থী ভর্তি করা হয়।
যারা সবাই মেধাবীধের অন্যতম।
তাহলে চাকরি ক্ষেত্রে কেন এতটা ফারাক?
কেন তারা যোগ্য পাত্র হয়েও অনিদ্রায় ভুগছে।

 

বাংলাদেশে এমন কোনো প্রতিষ্ঠান নেই মন্ত্রণালয় নেই যেখানে সার্ভেয়ারদের ভূমিকা নেই।

 

 

 

Like Us On Facebook

Facebook Pagelike Widget
error: Content is protected !!