প্রকৃতিতে হারিয়ে যাওয়া

প্রকাশিত: ৯:২৩ পূর্বাহ্ণ, ডিসেম্বর ১৬, ২০২০

প্রকৃতিতে হারিয়ে যাওয়া
আজকে অনেক দিন পর  ট্রেন ভ্রমণে বেরিয়েছে রাশেদ।অন্য রকম লাগছে তার। কারণ আম্মুর কড়া শাসন আর রুটিন মাফিক জীবনে সে হাপিঁয়ে উঠেছে। একটুও পড়ার টেবিল থেকে উঠতে দেননা আম্মু। সারাদিন শুধু পড়া পড়া আর পড়া। আর শুধু বলে The more your read, The more your learn। এটা শুনতে শুনতে ত্যক্ত হয়ে গেছে সে।
কিছুদিন আগে মামা বেড়াতে এসেছিলো তাদের বাড়িতে। রাশেদের খুশি আর দেখে কে! কারণ মামা আসলে সে একটু স্বাধীনতা পায়। তাই সে আজ খুশি। মামা যাওয়ার সময় বায়না ধরলো সেও মামা সাথে যাবে। কারণ একটু মুক্ত বাতাসে নিজেকে হারিয়ে দেয়া।
তার মামাও তাকে তার দলে ফুরে নেয়।
যখন সে ট্রেনে উঠলো তখন তার মনে বেজে উঠলো-
ঝক্ ঝক্ ট্রেন চলেছে
ট্রেণের বাড়ি কই।
আমরা যখন ট্রেনে উঠলাম তখন মামাকে বললাম মামা আমি দরজার সাথে দাড়াবো। মামা নিষেধ করলেও আমি শুনলাম না। পরে আমার সাথে মামা পেরে উঠতে না পেরে সায় দিলেন। তবে বললেন সাবধান!:
যেহেতু ট্রেন ভ্রমণ টা অনেক দিন পর তাই আমরা ভিন্ন চিন্তা করলাম।
যতো দুর চোখ যায় শুধু সবুজ আর সবুজ।
তখন মনের আবেগেই গেয়ে উঠলাম
“এমন দেশটি কোথাও
খুজে পাবে না তো তুমি,
ও সে সকল দেশের রানী সে যে
আমার জন্ম ভূমি…….
সব কিছুকে পিছনে পেলে যেনো অন্য রকম সবুজের মধ্যে হারিয়ে যাচ্ছিলাম।খুশিতেই মনে যেনো হাজারো শব্দ মনে ভিড়ছে কবিতা লেখার জন্য। তাই সে  নিজেই একটা কবিতা তৈরি করার চেষ্টা করল। কবিতা টা যেনো আপনা আপনিই তৈরি হয়ে গেলো।
হারিয়ে যাচ্ছি আজ অনেক দূরে,
কেউ পাবে না খুঁজে আর আমায়
যতই ডাকুক করুণ সুরে।
আজ নেই বাধা আর
সবুজের মাঝে হারিয়ে যেতে
ফিরবো না আর হাতছানী দাও যতো বার।
.
চার দিকে শুধু সবুজের হাসি,
ছেয়ে রই অপলক।
ইচ্ছা করে বাংলা মা কে ঝড়িয়ে ধরে বলি,
মাগো তোমার ছেলে হয়েও
 রেখে যেতে হবে এই হাসি??
লেখা
মোঃআশ্রাফুল ইসলাম (হৃদয়)
ছোট বেরলা, নাঙ্গলকোট, কুমিল্লা

Like Us On Facebook

Facebook Pagelike Widget
error: Content is protected !!