আব্দুর রাজ্জাকের “অধিকার”

প্রকাশিত: ১১:২৩ পূর্বাহ্ণ, নভেম্বর ১৭, ২০২০

আব্দুর রাজ্জাকের “অধিকার”
মো:আব্দুর রাজ্জাক:
আমি কি অধিকার শব্দটির  প্রাপ্য নই!
আমি সব ধর্মকে শ্রাদ্ধা করি
শ্রাদ্ধা করি প্যাগোডা, মন্দির, গীর্জা
কিন্তু আমার মসজিদ ধ্বংসাস্তূপ কেন!
আমি সবার সহাবস্থানে বিশ্বাস করি
আমাকে তাড়াচ্ছ কেন!
আমার ভূমি,এত পূর্বপুরুষরা রেখেগেছেন
আমি অভিবাসী হতে পৃথিবীতে আসিনি,বা কারও দয়া পেতে!
আর্শ্চয, সবাই তোমরা তাড়াচ্ছ!
আমি সৌম্য
আমি বোধগম্য
আমি কাউকে আঘাত করিনি
কারও ওপর অবিচার করিনি।
কিন্তু তোমরা কি বলছো?
জঙ্গী,সন্ত্রাসী
এরা কারা!
কোথায় থাকে!
আর্শ্চয, আমি কি আগন্তুক!
আমার পূর্বপুরুষা
 ইতিহাসে থেকে থেকে আমরাও সবাই
 পিঠ থেকে থেকে রক্তিম রং তাড়াতে পারিনি!
সভ্যতা এসেছে
মানুষ শিখতে শিখেছে
আপ্লুত এই মানুষগুলোকে ভালোবাসতে শিখেনি
মানবাধিকার রচিত হয়েছে
এই মানুষগুলোর অধিকার রচিত হয়নি
জাতীয়তা এসেছে
এই মানুষগুলোর নাগরিকত্ব আসেনি
বহু শান্তিচুক্তি হয়েছে
কিন্তু এই মানুষগুলোর অধিকার রক্ষিত হয়নি।
সভ্য হয়েছে সবাই
কিন্তু এই মানুষগুলোর বিরুদ্ধে মেকিময় কথন বন্ধ হয়নি
সবার রিজার্ভ হিমালয় হয়েছে
এই মানুষগুলোর দু’মুঠো অন্ন জুটেনা!
আমি কি তুচ্ছ আশায় কন্ঠ মিলাবো?
না,না
 আমি আমার ভাইদের কথা বলেই যাব
বলেই যাব নির্যাতিত সম্প্রদায়ের কথা
পেনসিলে আমার প্রত্যকটা বর্ণই আসে  রক্তিম
আমি কিছুতেই তাদের এ ত্যাগ, তিতিক্ষা
অস্বীকার করতে পারি না।
সয়ে সয়ে তাদের তোমরা মানবিক অধিকার শব্দটি লুটে নিয়ে যাচ্ছো
আর উল্টো মিডিয়া তাক করিয়েছ
কি চাচ্ছ তোমরা!
তোমরা না নাম মানুষ!
রক্ত খেকো প্রানীর মতো করছো কেন?
জেনে রেখ্
এক একটি মুসলিম প্রাণ
থাকিতে শেষ ক্ষন
করিবে না নত মাথা
এরা সুন্নতি বলে বলিয়ান।
জীবন অতি তুচ্ছ মোদের
রক্ষা করিবো
নিজ ঈমান
 শহীদ বা গাজী হয়ে ঘটুক মম অবসান।
শিক্ষার্থী
রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগ
বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়।

Like Us On Facebook

Facebook Pagelike Widget
error: Content is protected !!